রবিবার , ১৯ মার্চ ২০২৩ | ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. 1Win AZ Casino
  2. 1win Brazil
  3. 1winRussia
  4. mostbet tr
  5. অর্থনীতি
  6. আইন ও আদালত
  7. আন্তর্জাতিক
  8. ঈশ্বরদী
  9. করোনাভাইরাস
  10. কৃষি
  11. ক্যাম্পাস
  12. খেলাধুলা
  13. গল্প ও কবিতা
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয়

রোজার মাসে কেউ যেনো খাদ্য মজুতদারি করতে না পারে: প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেদক
বার্তা কক্ষ
মার্চ ১৯, ২০২৩ ৭:২১ অপরাহ্ণ

রোজার মাসে মানুষের যাতে কোনো কষ্ট না হয়, সে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা সরকার নিয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে কেউ যাতে খাদ্য পণ্য মজুতদারি বা কালোবাজারি করতে না পারে সে জন্য সবাইকে সতর্ক থাকতে বলেছেন তিনি।

রোববার (১৯ মার্চ) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবাষির্কী উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনাসভায় দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন। তিনি এ আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা এ দেশের মানুষের জন্য কাজ করি। জাতির পিতা আমাদেও দেশ দিয়ে গেছেন সেই দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করাই আমাদের লক্ষ্য। সামনে রমজান মাস, মানুষের যাতে কষ্ট না হয় যা যা প্রয়োজন আমরা কিন্তু তার ব্যবস্থা করেছি। সঙ্গে সঙ্গে এটাও আমাদের সবার নজর রাখতে হবে কেউ যেন ওসব খাবার মজুতদারি করতে না পারে, কালোবাজারি করতে না পারে তার জন্য সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপির সময় পাঁচ পাঁচ বার বাংলাদেশ দুর্নীতিতে চাম্পিয়ন হয়। দুর্নীতিই তাদের নীতি এবং লুটপাট করে নিয়ে যায়। বাংলাদেশকে সম্পূর্ণ একটা ধ্বংস স্তুপে মধ্যে নিয়ে আসে। আবারও ভোট চুরি করে ১ কোটি ২৩ লাখ ভোয়া ভোট করে ক্ষমতায় আসতে চেয়েছিলো কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ সেটা মেনে নেয়নি। যার ফলে আন্দোলন এবং এর পরে জরুরি অবস্থা এদের অপকর্মের কারণেই। এর দুই বছর পর নির্বাচনে আমরা ক্ষমতায় আসি। ২৯ বছর তো ওই শক্তিগুলোই ক্ষমতায় ছিলো কি দিয়েছে তারা। আর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলেই এদেশের উন্নতি হয়। আজ বিএনপির নেতারা একটানা বক্তৃতা দিয়ে যাচ্ছে দেশটাকে নাকি আমরা ফোকলা বানিয়ে দিয়েছি, দেশটা নাকি শেষ করে দিয়েছি। দেশ নাকি ধ্বংস হয়ে গেছে। এখন কথাটা হচ্ছে চোখ থাকতে কেউ অন্ধ হলে তাকে কিছু দেখানো যায় না। ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণা দিয়েছিলাম আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ করে দিয়েছি। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছি। সমগ্র বাংলাদেশে ওযাইফাই কানেকশন, ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। প্রায় ৮ কোটি মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করে, ১৩ কোটি মোবইল সিম ব্যবহার করে। এই সুযোগটা তারা ব্যবহার করছে, কিছুই করি নাই। আমাদের দেওয়া বেসরকারি টেলিভিশন সেটাও ব্যবহার করছে। আমাদের দেওয়া ডিজিটাল বাংলাদেশ, সেটাও ব্যবহার করছে। আর তারপরেও বলছে আমরা কিছুই করি নাই।

আালোচনা সভায় শেখ হাসিনা দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বলবো আমরা যে মানুষের জন্য কাজ করি এটা মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে বলতে হবে। কারণ তাদের এই মিথ্যা, একটা মিথ্যা বার বার বলে বলে সেই মিথ্যাটাকেই তারা সত্য করতে চায়। কিন্তু তাদের কাছে মানুষ কি পেয়েছে, খাবারের জন্য হাহাকার। বিদ্যুৎ চাইতে গিয়ে গুলি খেয়ে মানুষ মারা গিয়েছে। কানসাটে ১০ জনের মতো মানুষ মেরে ফেলে দিয়েছে। শ্রমিক ন্যায্য মজুরি চেয়েছিলো বলে ২৭ জন শ্রমিককে রমজান মাসে গুলি করে হত্যা করেছিলো খালেদা জিয়া। ১৮ জন কৃষক সার চেয়েছিলো বলে হত্যা করেছিলো। তাদের তো এই রেকর্ড, তারা এই কাজগুলোই করে গেছে। আর আজকে কারও সারও চাইতে হয় না, বিদ্যুৎ আমরা পৌঁছে দিয়েছি। আমরা মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছি। সুপেয় পানি সুবিধা, স্যানিটারি ল্যাট্রিনের ব্যবস্থা করে দিয়েছি। গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত, খাদ্য নিরাপত্তা, পুষ্টি নিরাপত্তা, চিকিৎসা সেবা, কনিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে ৩০ প্রকার ওষুধ আমরা দিচ্ছি। এখন আমরা সেখানে ইনসুলিনও বিনা পয়সায় দিয়ে যাবো, সে কাজটা আমরা শুরু করে দিয়েছি। মানুষের কল্যাণে যা যা করার আওয়ামী লীগ সেটাই করে। আর মানুষ ভালো থাকলে ওই বিএনপি-জামাতিদের মনে কষ্ট হয়- আমার যা মনে হয়। কিন্তু আমাদের মনে রাখতে হবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এই মাটিতে জন্মগ্রহণ করেছেন। আর তিনি এই দেশ স্বাধীন করে দিয়ে গেছেন, তার বাংলাদেশে কোনো মানুষ অন্ন কষ্ট পাবে না, গৃহহীন থাকবে না। শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত থাকবে না। প্রত্যেকটা মানুষের জীবনমান উন্নত হবে। ভবিষ্যতে বাংলাদেশ কিভাবে উন্নত করবো যেটা ডিজিটাল বাংলাদেশ করেছি, ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ আমরা গড়ে তুলবো। শিক্ষা-দীক্ষায় প্রযুক্তি জ্ঞানে একটি স্মার্ট জনগোষ্ঠি সৃষ্টি হবে এবং এই দেশে এগিয়ে যাবে। হাজার ষড়যন্ত্র চক্রান্ত করে এই দেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে আর কাউকে ছিনিমিনি খেলতে দেওয়া হবে না। এই বোমাবাজি, গুলি, গ্রেনেড হামলাকারি, ১০ ট্রক অস্ত্র চোরাকারবারি, মানুষের অর্থ পাচারকারী, এতিমের অর্থ আত্মসাৎকারী এরা কোনো দিনও এদেশের ক্ষমতায় আসতে পারবে না। বাংলাদেশের মানুষ কখনও তাদের মেনে নেবে না। বাংলাদেশ জাতির পিতা শেখ মুজিবের বাংলাদেশ। সেই বাংলাদেশ যেভাবে তিনি চেয়েছিলেন সেভাবেই বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে বাঙালি চলবে, বাংলাদেশ তার সম্মান নিয়ে চলবে। জাতির পিতার জন্মদিনে এটাই আমাদের প্রতিজ্ঞা, সেই প্রতিজ্ঞা নিয়ে আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদের কাজ করতে হবে দেশের মানুষের কল্যাণে।

বিএনপির সময়কার দুর্নীতি লুটপাটের চিত্র তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া আসলো ক্ষমতায়। টঙ্গীতে বিদ্যুৎকেন্দ্র আমরা নির্মাণ শুরু করেছিলাম, এসেই ওখানে থাবা দিলো কমিশন আর চাঁদা খাওয়া। ফলে বিদ্যুৎকেন্দ্র আর কেউ স্বচ্ছভাবে করতে পারলো না। ওই বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করে ফিরতে পারিনি তা বন্ধ হয়ে গেলো। লুটপাট কি হারে করেছে তারা। রাস্তাঘাট যা যেখানে করতে গেছে সব জায়গায় লুটপাট। সব জায়গায় কমিশন খাওয়া, ঘুষ খাওয়া, দুর্নীতি করা, যত কাজ আমরা করে যাচ্ছিলাম, যতকিছু উন্নয়ন আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই হয়েছে। সব কিছু উদ্বোধন করে যেতে পারিনি, আমাদের করা জিনিস উদ্বোধন করে নিজেরা ক্রেডিট নিয়েছে। এ সময় তিনি পদ্মাসেতু নির্মাণ, ভারতের সঙ্গে গঙ্গার পানি চুক্তির পর বিএনপির সমালোচনার প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ওদের চরিত্রটাই হচ্ছে যত কাজ করবেন সেগুলোকে মানুষের কাছে হেয় প্রতিপন্ন করা। ভাঙা রেকর্ড আগের কলের গান ছিলো রেকর্ড যদি ভেঙে যেতো একটা কথা বার বার ওখানেই বাজতে থাকতো। ভাঙা রেকর্ডের মতো বলে যাচ্ছে এ সরকার কিচ্ছু করেনি। এই যে এতো রাস্তাঘাট। এতো উন্নয়ন, আজকে খাদ্যের অভাব নেই। ১২ মাস সব কিছু খেতে পারছেন। এসব তো আমরা গবেষণা করে উদ্যোগ নিয়েই করে দিয়েছি। সেগুলো খেতে খুব ভালো লাগে, কিন্তু বদনামটা করার সময় গাল ভরে যায়। খেয়েদেয়ে নাদুস-নুদুস হয়ে আমাদের বিরুদ্ধে কথা বলেই যাচ্ছে। আমি জানি না এতো মিথ্যা কথা কোথা থেকে আসে তাদের।

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জাতীয় সংসদের উপনেতা ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আফজাল হোসেন, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি বজলুর রহমান, দক্ষিণের সভাপতি আবু আহদে মন্নাফী প্রমুখ। আলোচনাসভা পরিচালনা করেন প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ।

সর্বশেষ - ঈশ্বরদী

আপনার জন্য নির্বাচিত

ঈশ্বরদীতে ১৮ ঘন্টায় ২০ মিলিমিটার বৃষ্টি

২০৪১ সালের বাংলাদেশ হবে সুস্থ মানব সম্পদ উন্নত সমৃদ্ধ দেশ : ডেপুটি স্পিকার

ঈশ্বরদী শুভসংঘের সহযোগিতায় চোখে আলো ফিরে পাচ্ছেন হাজেরা

ঈশ্বরদী শুভসংঘের সহযোগিতায় চোখে আলো ফিরে পাচ্ছেন হাজেরা

পাকশী রেলওয়ের আবাসিকে উচ্ছেদ স্থগিত রাখার জন্য ডিআরএমকে স্মারকলিপি

রূপপুর প্রকল্প : বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাজে গতি, চিন্তা সঞ্চালন লাইন নিয়ে

রূপপুর প্রকল্প : বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাজে গতি, চিন্তা সঞ্চালন লাইন নিয়ে

স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন ঈশ্বরদীর কৃতি সন্তান ডা. কামরুল

স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন ঈশ্বরদীর কৃতি সন্তান ডা. কামরুল

পাবনায় সড়ক দুর্ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী নিহত

পাবনায় সড়ক দুর্ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী নিহত

ডাক্তারের উপহারেই ওষুধের দামে আগুন

ডাক্তারের উপহারেই ওষুধের দামে আগুন

ঈশ্বরদীতে অবৈধ পলিথিন ফ্যাক্টরী সিলগালা- মালিক আটক

ঈশ্বরদীতে অবৈধ পলিথিন ফ্যাক্টরী সিলগালা- মালিক আটক

আমাদের ঈশ্বরদী’র নওশের আলী : মুক্তিযুদ্ধে শহীদ চিকিৎসক

আমাদের ঈশ্বরদী’র নওশের আলী : মুক্তিযুদ্ধে শহীদ চিকিৎসক

error: Content is protected !!