কানে কম শোনেন ৪২ শতাংশ রিকশাচালক

আমাদের ঈশ্বরদী রিপোর্টআমাদের ঈশ্বরদী রিপোর্ট
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:১৭ AM, ০৯ নভেম্বর ২০২২

বিশ্বের প্রায় ৪৩ কোটি ২০ লাখ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ পেশাগত কারণে শব্দদূষণের শিকার। বাংলাদেশের এ সমস্যায় সবচেয়ে বেশি ভুগছেন রিকশাচালকরা। ঢাকাসহ সব সিটি কর্পোরেশনে প্রায় ৪২ ভাগ রিকশাচালকই শব্দদূষণের শিকার। এরপরই রয়েছেন ট্রাফিক পুলিশ ও লেগুনাচালকরা।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সায়েন্সের ‘বাংলাদেশের রাজপথে শব্দদূষণ এবং শব্দদূষণের কারণে রাজপথে কর্মরত পেশাজীবীদের শ্রবণসমস্যা’ নিয়ে করা গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সায়েন্সের ইব্রাহিম অডিটোরিয়ামে গবেষণার ফলাফল তুলে ধরেন প্রধান গবেষক ড. সাইকা নিজাম।
গবেষণায় ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনসহ (উত্তর ও দক্ষিণ) রাজশাহী, কুমিল্লা ও সিলেট সিটি কর্পোরেশন এলাকায় শব্দদূষণের মাত্রা পরিমাপ করা হয়েছে। এসব সিটি করপোরেশন রাজপথে কর্মরত ৬৪৭ জন পেশাজীবীর (ট্রাফিক পুলিশ ও সার্জেন্ট, বাসচালক ও হেলপার, পিকআপচালক, সিএনজিচালক, লেগুনাচালক, দোকানদার, মোটরসাইকেল, রিকশাচালক ও প্রাইভেট কার) শ্রবণশক্তি পরিমাপ করেছে।

ড. সাইকা নিজাম বলেন, চলতি বছরের এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত এ গবেষণা করা হয়। রাজপথে শব্দদূষণের মাত্রা নির্ণয় এবং রাজপথে কর্মরত পেশাজীবীদের শ্রবণশক্তির ওপর সেই শব্দদূষণের প্রভাব নির্ণয় করার উদ্দেশ্যে এ গবেষণা চালানো হয়।

গবেষণায় বলা হয়, জরিপে অংশ নেয়া প্রতি চারজনে একজন কানে কম শোনার সমস্যায় ভুগছেন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৪২ শতাংশই রিকশাচালক। এছাড়া প্রায় ৩১ শতাংশ ট্রাফিক পুলিশ, ২৪ শতাংশ সিএনজি অটোচালক, ২৪ শতাংশ দোকানদার, ১৬ শতাংশ বাস, ১৫ শতাংশ প্রাইভেট কার এবং ১৩ শতাংশ মোটরসাইকেলচালক। এসব সমস্যায় ভোগাদের ৭ শতাংশের শ্রবণসহায়ক যন্ত্র (কক্লিয়ার ইমপ্ল্যান্ট) ব্যবহার জরুরি।

সমস্যায় ভোগা এসব মানুষ সবচেয়ে বেশি কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের। ঢাকার কাছের এই বিভাগের ৫৫ শতাংশ মানুষ শব্দদূষণের শিকার। সিলেটে প্রায় ৩১ শতাংশ, ঢাকায় ২২ দশমিক ৩ শতাংশ, রাজশাহীতে প্রায় ১৪ শতাংশ রাজপথে কর্মরত পেশাজীবী শব্দদূষণে ভুগছেন।

এ সময় প্রতিকারে শব্দদূষণের উৎস ও মাত্রা কমানোর জন্য পদক্ষেপ নেয়াসহ বেশ কিছু সুপারিশ তুলে ধরা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :